বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস || Coronavirus - সকল গেজেট এক ঠিকানায় || All gazettes are in one site.

বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস || Coronavirus


বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস || Coronavirusবিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস। সম্মানীত ভিজিটর, সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র সমৃদ্ধ এ বাংলা ব্লগ সাইটে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি। অনুগ্রহপূর্বক, পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখুন।
প্রিয় পাঠক, আপনি যদি আমার এই অলগেজেটস ডট কম সাইটে নতুন এসে
থাকেন; তাহলে, সাইটে প্রতিনিয়ত প্রকাশিত নতুন পোষ্টের আপডেট পেতে-প্লিজ, সাইটের ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে সাইটটির সঙ্গেই থাকুন। আর যদি ইতোমধ্যে আপনি “ফেজবুক পেজে” লাইক দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে আবারও স্বাগত জানাচ্ছি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র একত্রে, একসঙ্গে পাবার এ পাঠকপ্রিয় বাংলাদেশী বাংলা ব্লগে। আশা করি, পরবর্তীতে আবারও এসে ধন্য করবেন “সকল গেজেট এক ঠিকানায়” শিরোনামের এ বাংলা ব্লগে।

পাঠক, আপনাদের সকলের চাহিদার প্রতি লক্ষ্য রেখে এ ব্লগে আয়োজন করেছি-প্রাথমিক শিক্ষার অফিস আদেশ ও পত্র, প্রাথমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন, মাধ্যমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, উচ্চ শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, শিক্ষকদের বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, শিক্ষকদের পেশাগত প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রজ্ঞাপন ও পত্র, পাঠ্য বইয়ের ই-সংষ্করণ, ধর্মীয় ই-বুকসমূহ, আইন ও বিধিমালার ই-বুকসমূহ, জাতীয় পরিচয় পত্র বিষয়ক প্রজ্ঞাপন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনের প্রজ্ঞাপন ও পত্র, জাতীয় বেতন স্কেলসমূহ, বিভিন্ন আর্থিক সুবিধার প্রজ্ঞাপন ও পত্রসহ বিভিন্ন ধরনের সরকারি-বেসরকারি গুরূত্বপূর্ণ গেজেট, পরিপত্র ও পত্রাদি। এবার আসা যাক, আজকের পোষ্টের কথায়।

--------------------------------------------------
আরও দেখুন-

--------------------------------------------------

বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস।

 

করোনাভাইরাস কী (What is Corona virus?

Corona virus এমন একটি সংক্রামক ভাইরাস (Infectious virus), যে ভাইরাসটি এর আগে মানুষের মধ্যে কখনো ছড়ায়নি।
এই ভাইরাসটির আরো একটি নাম আছে, তা হলো এনসিওভি বা “নভেল করোনাভাইরসা”। এটিও এক ধরণের করোনাভাইরাস। করোনাভাইরাসের বেশ কয়েকটি প্রজাতি আছে, যার মধ্যে মাত্র ৬টি মানব দেহে সংক্রমিত হতে পারে। অবশ্য নতুন এই ভাইরাসের কারণে সেই সংখ্যাটি এখন থেকে হতে যাচ্ছে ৭টি।






২০০২ সালে  চীন দেশে  একটি ভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছিল, যার নাম সার্স অর্থাৎ সিভিয়ার এ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম। এর  সংক্রমণে সারা পৃথিবীতে ৭৭৪ জন লোকের মৃত্যু হয়েছিল এবং ৮০৯৮ জন ব্যক্তি সংক্রমিত হয়েছিল। উক্ত ভাইরাসটিও ছিল এক ধপ্রকারের করোনাভাইরাস।


কতটা ভয়ংকর এই ভাইরাস (Risks of Corona virus):


Corona virus মানুব দেহের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটায় এবং এটি একজনের দেহ থেকে আরেকজনের দেহে ছড়িয়ে পড়ে শ্বাসতন্ত্রের মাধ্যমে। আমাদের ঠান্ডা লাগার কারণে যে ধরনের ঘটনা ঘটে অনেকটা সে রকম ভাবেই এ ভাইরাস ছড়ায় হাঁচি-কাশির মাধ্যমে। এই ভাইরাসের সংক্রমনের কারনে মানব দেহের বিভিন্ন অরগ্যান বিকল হয়ে যেতে পারে এবং নিউমোনিয়া এবং মৃত্যু ঘটারও আশঙ্কা দেখা যায়।
 এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের দুই ২% লোক মারা গেছেন, হয়তো আরও মৃত্যু হতে পারে। এখান থেকেই বুঝা যায় যে, ভাইরাসটি মানুষের জন্য কতটা ভয়ংকর হতে পারে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়:

করোনা ভাইরাস যেভাবে ছড়ায়ঃ 

১. মূলত বাতাসের Air Droplet এর মাধ্যমে।

২. হাঁচি ও কাশির ফলে।

৩. আক্রান্ত ব্যক্তিকে স্পর্শ করলে।

৪. ভাইরাস আছে এমন কোন কিছু স্পর্শ করে হাত না ধুয়ে মুখে নাকে বা চোখে লাগালে। 

৫. পয়নিস্কাশন ব্যবস্থার মাধ্যমেও ছড়াতে পারে।

 করোনা ভাইরাসের লক্ষণ (symptoms of Corona virus):


১. সর্দি, কাশি, জ্বর, মাথাব্যথা, গলাব্যথা 

২. মারাত্মক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া 

৩. শিশু, বৃদ্ধ ও কম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের নিউমোনিয়া ও ব্রঙ্কাইটিস 

বিশ্বব্যাপী এক আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস || Coronavirus


করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করনীয় (Corona should be done to prevent the virus):


১. এখনও এই ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিস্কার না হওয়ায় বিস্তার রোধে প্রতিরোধই উপায়

২. মাঝে মাঝে সাবান-পানি বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধোয়া ।

৩. হাত না ধুয়ে মুখ, চোখ ও নাক স্পর্শ না করা।

৪. হাঁচি কাশি দেওয়ার সময় মুখ ঢেকে রাখা।


৫. ঠান্ডা বা ফ্লু আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে না মেশা। 


৬. বন্য জন্তু কিংবা গৃহপালিত পশুকে খালি হাতে স্পর্শ না করা।


৭. মাংশ ডিম খুব ভালোভাবে রান্না করা। 


৮. মুখে মাস্ক ব্যবহার করা যেতে পারে। 


৯. প্রচুর ফলের রস ও পানি পান করা। 


১০. হাঁচি কাশি দেওয়ার পর, রোগীর শুশ্রুষা করার পর, টয়লেট করার পর
পশুপাখি কিংবা পশুপাখির মল স্পর্শ করার পর এবং খাবার ও খাবার প্রস্তুত করার আগে ও পরে পরিস্কার করে হাত ধুতে হবে।

সূত্র: মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ

পোস্টের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন।

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে নিচের ফেসবুক, টুইটার বা গুগল প্লাসে
শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন। এতক্ষণ সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ।





কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.