ফেসবুক একাউন্ট নিরাপদ রাখার সেরা ৯ উপায়। - সকল গেজেট এক ঠিকানায়

ফেসবুক একাউন্ট নিরাপদ রাখার সেরা ৯ উপায়।

ফেসবুক একাউন্ট নিরাপদ রাখার সেরা ৯ উপায়।

ফেসবুক একাউন্ট নিরাপদ রাখার সেরা ৯ উপায়।

ফেসবুক একাউন্ট নেই এমন মানুষের সংখ্যা সম্ভবত: খুবই নগণ্য। সামাজিক যোগাযোগ রক্ষায় বিভিন্ন সোসাল মিডিয়ার মধ্যে ফেসবুক শীর্ষস্থান দখল করে আছে। এর সুবিধা যেমন আছে, অসুবিধাও কম নয়। ফেসবুকের ষ্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে অনেককেই আইনের কাঠগড়ায় মাঝে মধ্যেই দাঁড়াতে হয়। সবচেয়ে বিপদজনক পরিস্থিতির স্বীকার হতে হয়, যখন কারো ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক হয়।

 

উপরোক্ত পরিস্থিতি বিবেচনায় “ফেসবুক একাউন্ট”কে নিরাপদ রাখা একান্ত জরুরী।  

 

“ফেসবুক একাউন্ট” নিরাপদ রাখার সেরা ৯টি উপায়:

১. ফেসবুক একাউন্ট খোলার সময় আপনার যে মোবাইল নম্বর বা ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করবেন সেগুলো সবসময় সচল রাখুন। কেননা হ্যাকার আপনার একাউন্টের পাসওয়ার্ড বা ইমেইল এড্রেস পরিবর্তন করলে সাথে সাথেই ফেসবুক হতে ইমেইল পাঠিয়ে আপনাকে (একাউন্ট হোল্ডারকে) সতর্ক করে একটি Recovery লিংক পাঠিয়ে দেয়; তাতে ক্লিক করে সহজেই হ্যাক হওয়া আইডি রিকভার করা সম্ভব।

 

২. ফেসবুক একাউন্টে Two Factor Authentication অপশনটি চালু রাখুন (ফেসবুকের সেটিংস থেকে Security and login > use two-factor authentication এ গিয়ে মোবাইল নম্বর কিংবা ইমেইল যুক্ত করুন)।

 

৩. সরল/দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার না করে শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন। ব্যক্তিগত তথ্যের সাথে সংশ্লিষ্ট তথ্য (যেমনঃ জন্মতারিখ, নিজের নাম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম ইত্যাদি) পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

 

৪. Capital letter, small letter, number & symbol মিলিয়ে কমপক্ষে ১২ ক্যারেক্টারের শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

 

৫. ফেসবুকের ক্ষেত্রে Trusted Contact-এ ৩ থেকে ৫ জন ঘনিষ্ঠ ফেসবুক বন্ধুকে যুক্ত রাখুন। এর ফলে আইডি হ্যাক হয়ে গেলেও তা উদ্ধার করা সহজ হবে।

 

৬. ফেসবুক একাউন্ট খোলার সময় জাতীয় পরিচয়পত্রের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নাম ও জন্মতারিখ ব্যবহার করুন। এতে আপনার আইডি হ্যাক হলে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা সহজ হবে।

 

৭. জন্ম তারিখ, ফোন নাম্বারসহ অন্যান্য ব্যক্তিগত তথ্য উন্মুক্ত রাখবেন না। এতে বিভিন্ন রকমের হয়রানি ও প্রতারণা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা সহজ হবে।

 

৮. ফেসবুকের ক্ষেত্রে Privacy Settings – অপশনটি ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যক্তিগত তথ্য, ছবি, পোস্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। প্রয়োজনে প্রোফাইল লক করে রাখুন।

 

৯. স্ট্যাটাস, ছবি ইত্যাদি সতর্কতার সাথে এবং প্রাইভেসি নিশ্চিত করে শেয়ার করুন। মনে রাখবেন, ফেসবুকে নিজের জীবনাচরণকে যতবেশি উন্মুক্ত করবেন আপনি ততবেশি ঝুঁকিতে থাকবেন।

বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোর্টার ঢাকা থেকে প্রকাশিত সতর্কবার্তা:

 

ফেসবুক একাউন্ট নিরাপদ রাখার সেরা ৯ উপায়।

--------------------------------------------------

আরও দেখুন-

শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রাস্তা পারাপার নিশ্চিতকরণে মন্ত্রণালয়ের পরিপত্র জারি।

 

একনজরে-বাংলাদেশের জরুরী সেবার হটলাইন নম্বরসমূহ

 

------------------------------------------------

পোস্টের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের  ‘‘ফেসবুক পেজে  লাইক দিয়ে রাখুন

 

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে নিচের ফেসবুক, টুইটার বা গুগল প্লাসে

শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন। এতক্ষণ সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.