মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ'র নতুন পরামর্শ। - সকল গেজেট এক ঠিকানায়

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ'র নতুন পরামর্শ।

 মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ'র নতুন পরামর্শ।


মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ'র নতুন পরামর্শ।

সম্প্রতি লক্ষ্য করা গেছে যে, দেশের সড়ক-মহাসড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। গঠনগতভাবে মোটরসাইকেল অপেক্ষাকৃত একটি অনিরাপদ বাহন।

মোটরসাইকেল সাধারণত যুবক বা উঠতি বয়সীরা বেশি ব্যবহার করে থাকে, যাদের মধ্যে দ্রুতগতিতে গাড়ি চালানোর প্রবণতা খুব বেশি। পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, দেশে যাবৎ মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন সংখ্যা প্রায় ৩৬ লক্ষ ৫০ হাজার; পক্ষান্তরে মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানের সংখ্যা প্রায় ২৩ লক্ষ ৫০ হাজার অর্থাৎ বহুসংখ্যক অদক্ষ মোটরসাইকেল চালক ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত মোটরসাইকেল চালনা করছে। জরুরি প্রয়োজনে স্বল্প দূরত্বে গমনের জন্য মোটরসাইকেল ব্যবহারের উদ্দেশ্য থাকলেও বর্তমানে এসব যান মহাসড়ক দূরপাল্লায় চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে, যা অত্যন্ত বিপজ্জনক। মোটরসাইকেল চালনাকালে অনেক ক্ষেত্রে হেলমেটসহ নিরাপত্তা সরঞ্জামাদি ব্যবহার করা হচ্ছে না, ফলে দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতিরিক্ত গতি, ওভারটেকিং, নিয়ম জানা বা না মানা ইত্যাদিও মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ। সার্বিক বিবেচনায়-

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ' আহ্বান:

১. অভিভাবকগণ সন্তানদেরকে মোটরসাইকেল ব্যবহার করতে নিরুৎসাহিত করুন।

 

২. শুধুমাত্র জরুরি প্রয়োজনে স্বল্প দূরত্বে মোটরসাইকেল ব্যবহার করুন। দূরপাল্লা বা মহাসড়কে মোটরসাইকেল ব্যবহার করবেন না। মোটরসাইকেল চালনাকালে একজনের বেশি আরোহী বহন করবেন না।

 

৩. মোটরসাইকেল চালনাকালে ওভারটেকিং করবেন না। মোটরসাইকেলে সর্বদা স্বল্প গতি বজায় রাখুন অর্থাৎ দ্রুত গতিতে বা বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালাবেন না।

 

৪. অধিকাংশ ক্ষেত্রে মোড় বা বাঁক ঘোরার সময় মোটরসাইকেল কাত হয়ে পড়ে যায়। কারণে যে কোনো মোড় বাঁক ঘোরার আগে বা রাস্তার বাঁক অতিক্রম করার সময় নিয়ন্ত্রণ উপযোগী অত্যন্ত স্বল্প গতিতে মোটরসাইকেল চালাবেন।

 

৫. মোটরসাইকেল চালনাকালে মোবাইল ফোন বা ইয়ারফোন ব্যবহার করবেন না। ট্রাফিক আইন, ট্রাফিক সাইন মেনে চলুন।

 

 ৬. চালক আরোহী উভয়েই সঠিকভাবে মানসম্মত হেলমেট অন্যান্য নিরাপত্তা সরঞ্জামাদি (Chest guard, Knee Guard, Elbow guard, গোড়ালি ঢাকা জুতা বা কেডস সম্পূর্ণ আঙ্গুল ঢাকা গ্লাভস এবং ফুলপ্যান্ট, ফুল শার্ট ব্যবহার করুন।

 

৭. হালনাগাদ বৈধ কাগজপত্র (ড্রাইভিং লাইসেন্স, রেজিষ্ট্রেশন সার্টিফিকেট, ট্যাক্স-টোকেন ইত্যাদি) এবং রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নাম্বার প্লেট ব্যতীত মোটরসাইকেল চালাবেন না।

--------------------------------------------------

আরও দেখুন-

যানবাহনেরজরিমানা মওকুফ সংক্রান্ত বি.আর.টি-এর প্রজ্ঞাপন জারী।

------------------------------------------------

বিআরটিএ’র বিজ্ঞপ্তি- 

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ'র নতুন পরামর্শ।

 

পোস্টের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের  ‘‘ফেসবুক পেজে  লাইক দিয়ে রাখুন

 

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে নিচের ফেসবুক, টুইটার বা গুগল প্লাসে

শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন। এতক্ষণ সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.