অগ্নি-প্রতিরোধে করনীয়/ How to prevent fire. - সকল গেজেট এক ঠিকানায় || All gazettes are in one site.

অগ্নি-প্রতিরোধে করনীয়/ How to prevent fire.


অগ্নি-প্রতিরোধে করনীয়/ How to prevent fire.অগ্নি-প্রতিরোধে করনীয়। সম্মানীত ভিজিটর, সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র সমৃদ্ধ এ বাংলা ব্লগ সাইটে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি। অনুগ্রহপূর্বক, পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখুন।
প্রিয় পাঠক, আপনি যদি আমার এই অলগেজেটস ডট কম সাইটে নতুন এসে থাকেন; তাহলে, সাইটে প্রতিনিয়ত প্রকাশিত নতুন পোষ্টের আপডেট পেতে-প্লিজ, সাইটের ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে সাইটটির সঙ্গেই থাকুন। আর যদি ইতোমধ্যে আপনি
“ফেজবুক পেজে” লাইক দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে আবারও স্বাগত জানাচ্ছি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র একত্রে, একসঙ্গে পাবার এ পাঠকপ্রিয় বাংলাদেশী বাংলা ব্লগে। আশা করি, পরবর্তীতে আবারও এসে ধন্য করবেন “সকল গেজেট এক ঠিকানায়” শিরোনামের এ বাংলা ব্লগে।





পাঠক, আপনাদের সকলের চাহিদার প্রতি লক্ষ্য রেখে এ ব্লগে আয়োজন করেছি-প্রাথমিক শিক্ষার অফিস আদেশ ও পত্র, প্রাথমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন, মাধ্যমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, উচ্চ শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, শিক্ষকদের বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, শিক্ষকদের পেশাগত প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রজ্ঞাপন ও পত্র, পাঠ্য বইয়ের ই-সংষ্করণ, ধর্মীয় ই-বুকসমূহ, আইন ও বিধিমালার ই-বুকসমূহ, জাতীয় পরিচয় পত্র বিষয়ক প্রজ্ঞাপন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনের প্রজ্ঞাপন ও পত্র, জাতীয় বেতন স্কেলসমূহ, বিভিন্ন আর্থিক সুবিধার প্রজ্ঞাপন ও পত্রসহ বিভিন্ন ধরনের সরকারি-বেসরকারি গুরূত্বপূর্ণ গেজেট, পরিপত্র ও পত্রাদি। এবার আসা যাক, আজকের পোষ্টের কথায়।
--------------------------------------------------
আরও দেখুন-

--------------------------------------------------





অগ্নি-প্রতিরোধে করনীয়।

সম্প্রতি দেশে অগ্নিকান্ডের পরিমাণ বেড়ে গেছে। প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হলে এর ক্ষয়-ক্ষতি থেকে নিজেদেরকে অনেকটাই রক্ষা করা যেত।
 সম্ভাব্য অগ্নিকান্ড প্রতিরোধে নিম্নরূপ ব্যবস্থা গ্রহন করা যেতে পারে-
১. রান্নার পর চুলা সম্পূর্ণভাবে নিভিয়ে ফেলুন।

২. ভেজা জামা কাপড় চুলার উপর শুকাতে দিবেন না।

৩. গ্যাসের চুলা জ্বালানোর পূর্বে কমপক্ষে ১৫ মিনিট পূর্বে রান্নাঘরের সকল জানালা/দরজা খুলে বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা করুন।

৪. গ্যাসের চাবি অন করার পূর্বে ম্যাচের কাঠি ধরাবেন।

৫. গ্যাসের চুলার হোজপাইপটি ফাটা/ক্ষতিগ্রস্থ হলে পরিবর্তন করুন।

৬. বাসাবাড়ির বৈদ্যুতিক লাইন প্রতি ০৬ মাস অন্তর অন্তর নিয়মিত পরীক্ষা করুন।

৭. সঠিক মানের বৈদ্যুতিক তার/সরঞ্জাম ব্যবহার করুন।

৮. অব্যবহৃত বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম মূল লাইন থেকে বিচ্ছিন্ন রাখুন।

৯. ক্ষতিগ্রস্থ/নিম্নমানের বৈদ্যুতিক তার/সরঞ্জাম প্রতিস্থাপন করুন।

১০. বাসাবাড়ি/প্রতিষ্ঠান অগ্নি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন।

১১. অগ্নি ঝুঁকি অনুসারে প্রয়োজনীয় সংখ্য অগ্নি-নির্বাপক যন্ত্র মজুদ রাখুন।

১২. অগ্নি নির্বাপক যন্ত্রের প্রয়োগ ও ব্যবহার বিধি সম্পর্কে প্রশিক্ষণ নিন।


আর্টিকেলটি ভালো লাগলে লাইক ও শেয়ার করুন, প্লিজ।
গেজেটের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের এ ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে রাখুন।




কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.