ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের করণীয় - সকল গেজেট এক ঠিকানায় || All gazettes are in one site.

ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের করণীয়


ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের করণীয়ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের করণীয়। সম্মানীত ভিজিটর, সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র সমৃদ্ধ এ বাংলা ব্লগ সাইটে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি। অনুগ্রহপূর্বক, পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখুন।
প্রিয় পাঠক, আপনি যদি আমার এই অলগেজেটস ডট কম সাইটে নতুন এসে থাকেন; তাহলে, সাইটে প্রতিনিয়ত প্রকাশিত নতুন পোষ্টের আপডেট পেতে-প্লিজ, সাইটের
ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে সাইটটির সঙ্গেই থাকুন। আর যদি ইতোমধ্যে আপনি “ফেজবুক পেজে” লাইক দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে আবারও স্বাগত জানাচ্ছি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র একত্রে, একসঙ্গে পাবার এ পাঠকপ্রিয় বাংলাদেশী বাংলা ব্লগে। আশা করি, পরবর্তীতে আবারও এসে ধন্য করবেন “সকল গেজেট এক ঠিকানায়” শিরোনামের এ বাংলা ব্লগে।





পাঠক, আপনাদের সকলের চাহিদার প্রতি লক্ষ্য রেখে এ ব্লগে আয়োজন করেছি-প্রাথমিক শিক্ষার অফিস আদেশ ও পত্র, প্রাথমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন, মাধ্যমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, উচ্চ শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, শিক্ষকদের বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, শিক্ষকদের পেশাগত প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রজ্ঞাপন ও পত্র, পাঠ্য বইয়ের ই-সংষ্করণ, ধর্মীয় ই-বুকসমূহ, আইন ও বিধিমালার ই-বুকসমূহ, জাতীয় পরিচয় পত্র বিষয়ক প্রজ্ঞাপন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনের প্রজ্ঞাপন ও পত্র, জাতীয় বেতন স্কেলসমূহ, বিভিন্ন আর্থিক সুবিধার প্রজ্ঞাপন ও পত্রসহ বিভিন্ন ধরনের সরকারি-বেসরকারি গুরূত্বপূর্ণ গেজেট, পরিপত্র ও পত্রাদি। এবার আসা যাক, আজকের পোষ্টের কথায়।
--------------------------------------------------
আরও দেখুন-

--------------------------------------------------

ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের করণীয়।

সম্প্রতি দেশে ভূমিকম্পের পরিমাণ বেড়ে গেছে। যদিও জীবন-মৃত্যুর মালিক মহান আল্লাহপাক, তবুও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হলে এর ক্ষয়-ক্ষতি থেকে নিজেদেরকে অনেকটাই রক্ষা করা সম্ভব হয়। আবার ভূমিকম্পের সময়ও কিছু কাজ জরুরী ভিত্তিতে করলে  ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ কম হয়।

ভূমিকম্প মোকাবেলায় আমাদের যা যা করণীয়সমূহ-

১. ভূমিকম্প অনুভূত হলে আতংকিত বা দিশেহারা হবেন না। আপনি যদি ভবনের নিচ তলায় থাকেন, তাহলে দ্রুত বাইরে খোলা জায়গায় বেরিয়ে আসুন।

২. যদি ভবনের উপর তলায় থাকেন, তাহলে কক্ষের নিরাপদ স্থান যেমন শক্ত খাট বা টেবিলের নিচে, বীম বা কলামের পার্শ্বে, অথবা রুমের কর্নারে আশ্রয় নিন। বসে পড়ুন এবং বালিশ, কুশন , হেলমেট বা নিজের দু'হাত মাথার উপরে দিয়ে মাথা সুরক্ষিত করুন।

৩. ভূমিকম্পের প্রথম ঝাঁকুনীর পর পূনরায় ঝাঁকুনী হতে পারে। সুতরাং একবার বাইরে বেরিয়ে এলে নিরাপদ অবস্থা ফিরে না আসা পর্যন্ত ভবনে পুনরায় প্রবেশ করবেন না।
আপনি যদি কোন বিধ্বস্ত ভবনে আটকা পড়েন এবং আপনার ডাক উদ্ধারকারীগণ শুনতে না পায় তাহলে শক্ত কোন কিছু দিয়ে দেয়ালে বা ফ্লোরে  জোরে জোরে আঘাত করে উদ্ধারকারীদের মনোযোগ আকর্ষণ করার চেষ্টা করুন। 

৪. ভূমিকম্পকালীন আশ্রয়স্থলে শুকনো খাবার, পানি, ব্যাটারী চালিত টর্চ, বাঁশি ও





প্রদর্শনের জন্য লাল কাপড় ইত্যাদি সংরক্ষণ করুন। 

৫. মনে রাখবেন, ভূমিকম্প নিজে মানুষকে আঘাত করে না। মানুষের তৈরী।
ঘরবাড়ী বা দুর্বল স্থাপনা ভেংগে পড়ে মানুষ হতাহত হয়। 

৬. বিল্ডিং কোড অনুসরণ করে ভবন নির্মাণ করুন, ভূমিকম্পের ঝুঁকি হ্রাস করুন৷

৭. ভূমিকম্পের আগাম পূর্বাভাস দেওয়ার কোন যন্ত্র এখনও আবিষ্কৃত হয়নি। সুতরাং সচেতনতা এবং পূর্ব প্রস্তুতিই ভূমিকম্প মোকাবেলার সর্বোত্তম উপায়।

 


আর্টিকেলটি ভালো লাগলে লাইক ও শেয়ার করুন, প্লিজ।
গেজেটের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের এ ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে রাখুন।




কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.