দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯ || আবেদনের আগে এই ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন - সকল গেজেট এক ঠিকানায় || All gazettes are in one site.

দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯ || আবেদনের আগে এই ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন


দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯ || আবেদনের আগে এই ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিনদপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯ || আবেদনের আগে এই ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন। সম্মানীত ভিজিটর, সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র সমৃদ্ধ এ বাংলা ব্লগ সাইটে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছি। অনুগ্রহপূর্বক, পোস্টটি শেষ পর্যন্ত দেখুন।
প্রিয় পাঠক, আপনি যদি আমার এই অলগেজেটস ডট কম সাইটে নতুন
এসে থাকেন; তাহলে, সাইটে প্রতিনিয়ত প্রকাশিত নতুন পোষ্টের আপডেট পেতে-প্লিজ, সাইটের ফেসবুক পেজে” লাইক দিয়ে সাইটটির সঙ্গেই থাকুন। আর যদি ইতোমধ্যে আপনি “ফেজবুক পেজে” লাইক দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে আবারও স্বাগত জানাচ্ছি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রজ্ঞাপন ও চিঠি-পত্র একত্রে, একসঙ্গে পাবার এ পাঠকপ্রিয় বাংলাদেশী বাংলা ব্লগে। আশা করি, পরবর্তীতে আবারও এসে ধন্য করবেন “সকল গেজেট এক ঠিকানায়” শিরোনামের এ বাংলা ব্লগে।
পাঠক, আপনাদের সকলের চাহিদার প্রতি লক্ষ্য রেখে এ ব্লগে আয়োজন করেছি-প্রাথমিক শিক্ষার অফিস আদেশ ও পত্র, প্রাথমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন, মাধ্যমিক শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, উচ্চ শিক্ষার প্রজ্ঞাপন ও পত্র, শিক্ষকদের বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, শিক্ষকদের পেশাগত প্রশিক্ষণ ও ম্যানুয়াল, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রজ্ঞাপন ও পত্র, পাঠ্য বইয়ের ই-সংষ্করণ, ধর্মীয় ই-বুকসমূহ, আইন ও বিধিমালার ই-বুকসমূহ, জাতীয় পরিচয় পত্র বিষয়ক প্রজ্ঞাপন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনের প্রজ্ঞাপন ও পত্র, জাতীয় বেতন স্কেলসমূহ, বিভিন্ন আর্থিক সুবিধার প্রজ্ঞাপন ও পত্রসহ বিভিন্ন ধরনের সরকারি-বেসরকারি গুরূত্বপূর্ণ গেজেট, পরিপত্র ও পত্রাদি। এবার আসা যাক, আজকের পোষ্টের কথায়।






--------------------------------------------------
আরও দেখুন-
--------------------------------------------------

দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯ || আবেদনের আগে এই ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে চুক্তিভিত্তিক জনবল সংগ্রহের সংশোধিত নীতিমালা, ২০১৯-এর আলোকে আপনাদের জন্য নিচের ৩৩টি প্রশ্নোত্তরগুলো নিবেদন করেছেন মো: আবু বকর সিদ্দিক, এ্যাডমিন -অলগেজেটস ডট কম)


প্রশ্ন-১। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে
নীতিমালাটি কবে প্রকাশ করা হয়?
উত্তর: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওয়েব সাইটে নীতিমালাটি ১৭/০৯/২০১৯ খ্রি: তারিখে প্রকাশ করা হয় এবং মন্ত্রণালয়ের সচিব কর্তৃক তা পূর্বেই ১৬/০৯/২০১৯ খ্রি: তারিখে স্বাক্ষরিত হয়।

প্রশ্ন-২। নীতিমালাটির নাম কি?
উত্তর: নীতিমালাটির নাম “আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে জনবল সংগ্রহের নীতিমালা, ২০১৯”। (অনু:১, উপ-অনু:ক)

প্রশ্ন-৩। নীতিমালাটি কোন্ বিদ্যালযের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে?
উত্তর: নীতিমালাটি দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে জনবল সংগ্রহের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে । (অনু:১, উপ-অনু: খ)

প্রশ্ন-৪। নীতিমালাটি কবে থেকে কার্যকর হবে?
উত্তর: ইহা জারির তারিখ হতে (১৬/০৯/২০১৯ খ্রি:) কার্যকর হবে।(অনু: ১. ক)

প্রশ্ন-৫। নিয়োগের জন্য কে দরখাস্ত আহ্বান করবেন?
উত্তর: উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট হতে অনুরোধ প্রাপ্তির পর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নিয়োগের নিমিত্ত সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দাদের নিকট হইতে দরখাস্ত আহবান করিবেন।(৩.ক)

প্রশ্ন-৬। দরখাস্তে আবেদনকারীরা কী কী তথ্য উল্লেখ করবেন?
উত্তর: দরখাস্তে আবেদনকারীরা নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা, জন্ম তারিখ, আবেদন জমা প্রদানের শেষ তারিখে বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা, বৈবাহিক অবস্থা, ধর্ম ইত্যাদি তথ্য উল্লেখ করবেন। (৩. গ)

প্রশ্ন-৭। দরখাস্তের সঙ্গে আবেদনকারী কী কী পেপারস জমা দেবেন?
উত্তর: আবেদনপত্রের সহিত সদ্য তোলা ০২ (দুই) কপি পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ছবি, ভোটার আইডি কার্ড বা জন্ম নিবন্ধনের সত্যায়িত কপি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের সত্যায়িত কপি ও নাগরিকত্ব সনদপত্রের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে। (৩.গ)

প্রশ্ন-৮। দরখাস্ত দাখিলের জন্য কতদিন সময় পাওয়া যাবে?
উত্তর: কমপক্ষে ১৫ (পনের) দিন সময় পাওয়া যাবে।(৩.ঘ)

প্রশ্ন-৯। কাকে সম্বোধন করে দরখাস্ত লিখতে হবে?
উত্তর: আবেদনকারীকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে সম্বোধন করে আবেদন করতে হবে।(৩.ঙ)

প্রশ্ন-১০। কোন্ কোন্ এলাকার লোক আবেদন করতে পারবেন?
উত্তর: দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগ প্রত্যাশী আবেদনকারীকে বাংলাদেশের নাগরিক এবং সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের ক্যাচমেন্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। তবে ক্যাচমেন্ট এলাকার কোন প্রার্থী পাওয়া না গেলে সেক্ষেত্রে ক্যাচমেন্ট এলাকার পার্শ্ববর্তী ক্যাচমেন্ট এলাকার প্রার্থীকে বিবেচনায় নেওয়া হতে পারে। (৪.ক)

প্রশ্ন-১১। আবেদনকারীর বয়সসীমা কত হতে হবে?
উত্তর: প্রার্থীর বয়সসীমা সর্বনিম্ন ১৮ বছর এবং সর্বোচ্চ ৩০ বছর হতে হবে, তবে মুক্তিযোদ্ধাদের পোষ্যদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর পর্যন্ত শিথিলযোগ্য হবে। (৪.খ)





প্রশ্ন-১২। প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা কত হতে হবে?
উত্তর: প্রার্থীর সর্বনিম্ন শিক্ষাগত যোগ্যতা হবে অষ্টম শ্রেণি পাশ। (৪.গ)

প্রশ্ন-১৩। দপ্তরী কাম প্রহরী পদে মহিলারা কি আবেদন করতে পারেবেন? বিশেষ আর কি ধরনের যোগ্যতার প্রয়োজন হবে?
উত্তর: দপ্তরী কাম প্রহরী পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে নৈশ প্রহরীর জন্য উপযুক্ত, সাইকেল চালনায় পারদর্শী, সুঠাম দেহের অধিকারী পুরুষ প্রার্থীদের নির্বাচন করতে হবে। (৪.ঘ)

প্রশ্ন-১৪। প্রার্থী বাছাই কমিটিতে কতজন সদস্য থাকবেন?
উত্তর: প্রার্থী বাছাই কমিটিতে মোট ৫জন সদস্য থাকবেন। (৫)

প্রশ্ন-১৫। বাছাই কমিটিতে কারা থাকবেন?
উত্তর: জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, জেলা শিক্ষা অফিসার, সংশ্লিষ্ট উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সংশ্লিষ্ট উপজেলার উপজেলা শিক্ষা অফিসার। (৫)
   
প্রশ্ন-১৬। বাছাই কমিটিতে সভাপতি ও সদস্য-সচিব হিসেবে কারা থাকবেন?
উত্তর: বাছাই কমিটিতে সভাপতি থাকবেন-জেলা প্রশাসক ও সদস্য-সচিব হিসেবে থাকবেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার। (৫)
    
প্রশ্ন-১৭। ইন্টারভিউ কার্ড কে ইস্যু করবেন?   
উত্তর: জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের স্বাক্ষরে বৈধ প্রার্থীদের বর্তমান ঠিকানায় ইন্টারভিউ কার্ড ইস্যু হবে। (৭. ক)

প্রশ্ন-১৮। কত নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে?
উত্তর: বৈধ প্রার্থীদের ২০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। (৭. খ)

প্রশ্ন-১৯। চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত/মনোনীত প্রার্থীকে কে যোগদানের জন্য অনুরোধ জানাবেন?  
উত্তর: চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত/মনোনীত প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পত্র জারি করবেন। (৭. গ)

প্রশ্ন-২০। নির্বাচিত/মনোনীত ব্যক্তি কিভাবে কাজে যোগদান করবেন?  
উত্তর: নির্বাচিত/মনোনীত ব্যক্তি কাজে যোগদানের অনুরোধ প্রাপ্তির পর নমুনা চুক্তিনামার শর্তাবলি মেনে নিয়ে যোগদানে সম্মত হলে ৩০০ টাকা মূল্যের ননজুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে চুক্তিনামা স্বাক্ষর করে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদান করবেন এবং চুক্তি অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করবেন। (৭. ঘ)

প্রশ্ন-২১। চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত/মনোনীত প্রার্থী দপ্তরী কাম প্রহরী নির্ধারিত সময়ে যোগদানে ব্যর্থ হলে কি করবেন?
উত্তর: দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদানের জন্য নিয়োগপ্রাপ্ত ব্যক্তি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যোগদান করতে ব্যর্থ হলে তিনি উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট যোগদানের তারিখ আরো ১৫(পনেরো) দিন বর্ধিত করার আবেদন করতে পারবেন। নির্ধারিত/বর্ধিত সময়ের মধ্যে যোগদান করতে না পারলে তার নিয়োগ বাতিল বলে গণ্য হবে। (৭. ঙ)

প্রশ্ন-২২। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কত বছরের জন্য চুক্তিপত্র সম্পাদন করবেন?
উত্তর: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম প্রহরী পদে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে জনবল সংগ্রহের নিমিত্ত চুক্তিপত্র ০৩ বছরের জন্য সম্পাদন করতে হবে। ০৩ বছর অন্তর অন্তর তা নবায়ন করা যাবে। চুক্তিপত্রের মেয়াদ শেষে সন্তোষজনক চাকুরী সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নবায়নের জন্য সুপারিশসহ উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট প্রেরণ করবেন। উপজেলা শিক্ষা অফিসার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। (৭. চ)

প্রশ্ন-২৩। দপ্তরী কাম প্রহরী পদের মাসিক সেবামূল্য/বেতন কত হবে?
উত্তর: দপ্তরী কাম প্রহরী পদের মাসিক সেবামূল্য সরকারি প্রচলিত বিধান অনুসরণপূর্বক সর্বসাকুল্যে সেবামূল্য প্রদান করা হইবে। (৮. ক)

প্রশ্ন-২৪। কোন মাসের ভগ্নাংশ দিনের দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কিভাবে সেবামূল্য নির্ধারিত হবে?
উত্তর: পূর্ণ মাসের ভগ্নাংশ দিনের দায়িত্ব পালনের আনুপাতিক হারে সেবামূল্য প্রাপ্য হবেন। (৮. খ)

প্রশ্ন-২৫। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী প্রতিদিন কিভাবে হাজিরা দেবেন ও সেবামূল্য পাবেন?
উত্তর: প্রধান শিক্ষক দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদানকৃত ব্যক্তির হাজিরা রেজিস্টারে দৈনন্দিন হাজিরা গ্রহণ করবেন এবং প্রতি মাসের হাজিরা সংক্রান্ত ও মূল্যায়ন প্রতিবেদন পরবর্তী মাসের ০৩ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসার বরাবরে প্রেরণ করবেন। প্রাপ্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সেবামূল্য প্রদান করা হবে। (৯. ক)

প্রশ্ন-২৬। একজন দপ্তরী কাম প্রহরীর আচরণ, কার্যকলাপ ও দায়িত্বপালন সন্তোষজনক না হলে কী হবে?
উত্তর: দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদানকৃত ব্যক্তির আচরণ, কার্যকলাপ ও দায়িত্ব সচেতনতা মূল্যায়ন করা হবে। মূল্যায়ন প্রতিবেদন সন্তোষজনক না হলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার নিয়োগ অনুমোদনকারী কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তক্রমে নিয়োগ বাতিলপূর্বক নতুন করে নিয়োগের বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। (৯. খ)

প্রশ্ন-২৭। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী কত দিন নৈমিত্তিক ছুটি পাবেন?
উত্তর: আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে যোগদানকৃত দপ্তরী কাম প্রহরী সরকারি ছুটি ব্যতীত নৈমিত্তিক বা অন্য কোন দুটি প্রাপ্য হবেন না। (১০. ক)

প্রশ্ন-২৮। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী দায়িত্ব পালনকালে দুর্ঘটনা, অসুস্থতাজনিত কিংবা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নিয়ন্ত্রণ বহির্ভূত কোন কারণে ছুটির প্রয়োজন হলে কিভাবে তা পাওয়া যাবে?
উত্তর: আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে যোগদানকৃত দপ্তরী কাম প্রহরী সরকারি ছুটি ব্যতীত নৈমিত্তিক বা অন্য কোন দুটি প্রাপ্য হবেন না। তবে দায়িত্ব পালনকালে দুর্ঘটনা, অসুস্থতাজনিত কিংবা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির নিয়ন্ত্রণ বহির্ভূত কারণে এবং উপযুক্ত প্রমাণের ভিত্তিতে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বার্ষিক সর্বোচ্চ ৭ (সাত) দিনের ছুটি মঞ্জুর করতে পারবেন। (১০. ক)

প্রশ্ন-২৯। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী যুক্তি সংগত কারণ ব্যতীত ১৫(পনেরো) কর্মদিবসের বেশী কর্মে অনুপস্থিত থাকলে কী হবে?
উত্তর: অনুচ্ছেদ-১০ এর উপ-অনুচ্ছেদ (ক) এ উল্লিখিত সরকারি দায়িত্ব পালনকালে দুর্ঘটনা ব্যতীত অন্য কোন কারণে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদানকৃত ব্যক্তির কর্মে অনুপস্থিতকাল ১৫(পনেরো) কর্মদিবসের বেশী হলে তার চুক্তি সরাসরি বাতিল বলে গণ্য হবে।

প্রশ্ন-৩০। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী সরকারি দায়িত্ব পালনকালে দুর্ঘটনার ফলে কর্মে অনুপস্থিতির জন্য কিভাবে সেবামূল্যে পাবেন?
উত্তর: সরকারি দায়িত্ব পালনকালে দুর্ঘটনার ফলে কর্মে অনুপস্থিতির জন্য আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে যোগদানকৃত দপ্তরী কাম প্রহরীকে বার্ষিক সর্বোচ্চ ১৫(পনেরো) কর্মদিবস পূর্ণ সেবামূল্যে ছুটি মঞ্জুর করা যাবে। (১০. গ)

প্রশ্ন-৩১। একজন দপ্তরী কাম প্রহরী কর্তৃপক্ষের বিনানুমতিতে বিদ্যালয়ে একাধিক্রমে ১৫(পনেরো) কর্মদিবস অনুপস্থিত থাকলে কি হবে?
উত্তর: একজন দপ্তরী কাম প্রহরী কর্তৃপক্ষের বিনানুমতিতে বিদ্যালয়ে একাধিক্রমে ১৫(পনেরো) কর্মদিবস অনুপস্থিত থাকলে চুক্তিনামা বাতিল বলে গণ্য হবে এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবে কর্মের অবসান ঘটবে। (১১. খ)

প্রশ্ন-৩২। একজন দপ্তরী কাম প্রহরীর বিরুদ্ধে কোন অসদাচরণ বা নৈতিকতা বিরোধী কার্যকলাপ বা ফৌজদারী কোন অভিযোগ উত্থাপিত হলে তার ভাগ্যে কী ঘটবে?
উত্তর: আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে যোগদানকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোন অসদাচরণ বা নৈতিকতা বিরোধী কার্যকলাপ বা ফৌজদারী কোন অভিযোগ উত্থাপিত হলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় প্রচলিত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে। (১১. গ)

প্রশ্ন-৩৩। এই নীতিমালা জারির ফলে ইতোপূর্বে জারীকৃত নীতিমালাগুলো কিভাবে মূল্যায়িত হবে?
উত্তর: ইতোপূর্বে জারীকৃত এতদসংক্রান্ত সকল নীতিমালা এবং আদেশ বাতিল বলে গণ্য হবে। (অনুচ্ছেদ ১২)

পূর্ণাঙ্গ নীতিমালাটি দেখতে হিট করুন এখানে।

পোস্টের নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে  লাইক দিয়ে রাখুন

আর্টিকেলটি ভালো লাগলে নিচের ফেসবুক, টুইটার বা গুগল প্লাসে
শেয়ার করে আপনার টাইমলাইনে রেখে দিন। এতক্ষণ সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ।




কোন মন্তব্য নেই

pollux থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.